রোজার নিয়ত আরবি, উচ্চারণ, বাংলা অর্থ

মহান আল্লাহের সন্তুষ্টির আশায় ধর্মপ্রাণ মুসলমানগ্ণ পবিত্র মাহে রমজান পালন করে থাকে। সাওম অর্থ বিরত থাকা। এর বহুবচন সিয়াম। সিয়ামের উর্দু, ফারসি, হিন্দি, ও বাংলা অর্থ হলো রোজা। সাহরি করার পর রোজা রাখার জন্য সংকল্প করাই হল নিয়ত। নবী করিম (সাঃ) বলেছেন রোজার নির্ধারিত দিনের আগের রাতে রোজার নিয়ত করতে হবে।

রোজার নিয়ত আরবি, উচ্চারণ, বাংলা অর্থ

রোজার নিয়ত আরবিঃ

– نَوَيْتُ اَنْ اُصُوْمَ غَدًا مِّنْ شَهْرِ رَمْضَانَ الْمُبَارَكِ فَرْضَا لَكَ يَا اللهُ فَتَقَبَّل مِنِّى اِنَّكَ اَنْتَ السَّمِيْعُ الْعَلِيْم

রোজার নিয়ত বাংলা উচ্চারণঃ

নাওয়াইতু আন আছুমা গাদাম মিন শাহরি রমাজানাল মুবারাকি ফারদাল্লাকা, ইয়া আল্লাহু ফাতাকাব্বাল মিন্নি ইন্নিকা আংতাস সামিউল আলিম।

আরও জানুনঃ বাথরুমে প্রবেশ করার দোয়া এবং বাহির হওয়ার দোয়া

রোজার নিয়ত বাংলা অর্থঃ

হে আল্লাহ! আমি আগামীকাল তোমার পক্ষ থেকে পবিত্র রমজানের নির্ধারিত ফরজ রোজা রাখার ইচ্ছা পোষণ (নিয়ত) করলাম। অতএব তুমি আমার পক্ষ থেকে (আমার রোজা তথা পানাহার থেকে বিরত থাকাকে) কবুল কর, নিশ্চয়ই তুমি সর্বশ্রোতা ও সর্বজ্ঞানী।

রোজার নিয়ত কি ফরজ?

নিয়ত হলো আরবি শব্দ। এর বাংলা শব্দ সংকল্প করা। কোন কাজ করার আগে ইচ্ছে ও সংকল্প করার নামই হলো নিয়ত। মহা নবী (সাঃ) বলেছেন আমাদের প্রতিটি কাজের আগে নিয়ত করা উত্তম।

রাসূল (সা.) বলেছেন, প্রত্যেক ব্যক্তির আমল নিয়তের ওপর নির্ভরশীল। প্রত্যেক ব্যক্তি তা-ই পাবে যা সে নিয়ত করবে। (বুখারি) মাহে রমজান মাসে নিয়ত করা ফরজ। আমাদের প্রশ্ন হলো রোজার নিয়ত কি মুখে আরবিতে বলতে হবে? উত্তর হলো ‘না করলেও হবে। রমজানের রোজা পালনের ক্ষেত্রে মুখে উচ্চারণ করে আরবি বা অন্য কোনো ভাষায় নিয়তবাক্য পাঠ করতে হবে না। এ বিষয়ে অনেক ফিকাহবিদ ও ইসলামী স্কলার একমত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x